সিডনিতে ভয়ানক বন্যা, নাগরিকদের নিরাপদ স্থানে সরে যেতে নির্দেশ

সিডনিতে ভয়ানক বন্যা, নাগরিকদের নিরাপদ স্থানে সরে যেতে নির্দেশ

শেয়ার করুন

অস্ট্রেলিয়ার সিডনির শহরতলি থেকে কয়েক হাজার বাসিন্দাকে সরে যেতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। দেশটির পূর্ব উপকূলে রেকর্ড বৃষ্টিপাত ও বন্যার কারণে স্থানীয় সময় আজ রোববার এ নির্দেশ জারি করা হয়। খবর এএফপির।

সিডনির উত্তর-পশ্চিমের নিম্নাঞ্চল এলাকার বাসিন্দাদের সরে যেতে নির্দেশ দিয়েছে জরুরি সংস্থা। নিউ সাউথ ওয়েলস অঙ্গরাজ্যে ভয়াবহ বন্যায় সতর্কতা জারির এক দিন পর দেশটির জরুরি সংস্থা বাসিন্দাদের সরে যেতে নির্দেশ দিল।

গতকাল  ২০ মার্চ শনিবার থেকে সিডনির উত্তরাঞ্চলের শহরগুলোয় মৌসুমি বৃষ্টি শুরু হয়েছে। এলাকাবাসী দলে দলে আশ্রয়কেন্দ্রে যেতে শুরু করেছেন।

টেলিভিশন ফুটেজে নিউ সাউথ ওয়েলস অঙ্গরাজ্যের টারে শহরে নদীতে একটি বাড়ি ভেসে যেতে দেখা গেছে। স্থানীয় মিলনায়তনে প্রায় দেড় শ মানুষ রাতে আশ্রয় নিয়েছেন। দাবানলের সময় এটি আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছিল। অনুমোদিত আশ্রয়কেন্দ্র ক্লাব টারের প্রধান নির্বাহী পল অ্যালেন বন্যাকে বিপর্যয়কর বলে মন্তব্য করেছেন। সম্প্রচার মাধ্যম এবিসিকে তিনি বলেন, কিছু স্থানীয় বাসিন্দা বন্যায় সব হারিয়েছেন।

এ সপ্তাহের মধ্যে উপকূলবর্তী এলাকায় বৃষ্টি কমতে পারে বলে পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে।
দ্য ওরেগামবা ড্যাম সিডনির বেশির ভাগ এলাকায় খাওয়ার পানির জোগান দেয়। গতকাল বিকেলে এটি প্লাবিত হয়েছে। সুপেয় পানির রিজার্ভারে ১৯৯০ সালের পর থেকে এই প্রথম এ ধরনের ঘটনা ঘটল।

জরুরি সংস্থাগুলোর কাছে সহযোগিতার জন্য এক হাজারেরও বেশি ফোন এসেছে। গতকাল রাত থেকে আজ পর্যন্ত ১০০টি আশ্রয়কেন্দ্র খোলা হয়েছে।

সিডনি ও আশপাশের এলাকায় বৃষ্টি আর বন্যার কারণে করোনাভাইরাসের টিকাদান স্থগিত হয়েছে।

 sydni flood