টঙ্গীতে ঈদ ছুটি নিয়ে শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষ: আহত ২৬

টঙ্গীতে ঈদ ছুটি নিয়ে শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষ: আহত ২৬

শেয়ার করুন

Tongi garments warkers clash

 

গাজীপুরের টঙ্গীর মিলগেট এলাকায় হা-মীম গ্রুপের পোশাক কারখানায় ঈদের ছুটি বৃদ্ধির দাবিতে চলা বিক্ষোভে শ্রমিক ও পুলিশ সংঘর্ষে কমপক্ষে ২৬ জন আহত হয়েছেন। আজ সোমবার (১০ এপ্রিল) সকাল ১১টায় বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা ঈদের ছুটি ১০ দিন করার দাবিতে কারখানায় বিক্ষোভ করলে এ সংঘর্ষ হয়।
আহতরা শ্রমিকরা হলেন- হাসান মিয়া (২৬), রাজীবুল ইসলাম (২৬), মামুন মিয়া (২৭), রবি (২১), লতিফ (১৯), ইমরান (১৯), রুবেল (২৪), রুবেল (২২), রনি (২২), এহসানুল হক (৩৫), রাজিবুল (২৬), কলি বেগম (২৪), নিজাম উদ্দিন (৩০), সমলা (২৫), ইয়াসিন (২০), হাসিনা (৪০), সাব্বির (২২), সাবিনা (২৫), রিনা বেগম (২০)।
সংঘর্ষের ঘটনায় ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশের এডিশনাল এসপি জালাল হাওলাদার, ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশের এএসপি এস আলম, সিটিএসবি পুলিশের এসআই রুবেল, সিটিএসবি পুলিশের এসআই কামাল হোসেন, পুলিশের এসআই লিটন, কনস্টেবল এনামুল হোসেনসহ অজ্ঞাত আরও তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে।
গাজীপুর ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশ ও শ্রমিকরা জানায়, সকালে শ্রমিকরা ঈদের ছুটি বৃদ্ধির দাবিতে কর্মবিরতি পালন করে কারখানার ভেতরে বিক্ষোভ করে। পরবর্তীতে ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশ ও থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করলে কারখানার শ্রমিকরা ক্ষিপ্ত হয়ে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। পরে পুলিশ শ্রমিকদের ওপর লাঠিচার্জ ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। এ সময় সংঘর্ষে আট পুলিশ সদস্য ও ১৮ জন শ্রমিক আহত হন।
আহত শ্রমিকদের টঙ্গী শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালে আনা হয়। গুরুতর আহত ১৩ জন শ্রমিককে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে।
এ বিষয়ে ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার জালাল হাওলাদার জানান, শ্রমিকরা সরকারি নির্দেশ অমান্য করে বিক্ষোভ কর্মসূচি ও মহাসড়ক অবরোধ করে। পুলিশকে উদ্দেশ্য করে শ্রমিকরা ইটপাটকেল নিক্ষেপ করলে পুলিশ পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার চেষ্টা করে। এ সময় বেশ কয়েকজন পুলিশ সদস্য ও শ্রমিক আহত হন।