আনুষ্ঠানিকভাবে জাতিসংঘের নবম মহাসচিব হলেন আন্তোনিও

আনুষ্ঠানিকভাবে জাতিসংঘের নবম মহাসচিব হলেন আন্তোনিও

শেয়ার করুন

_91914954_antonioguterres
বিশ্বসংবাদ ডেস্ক :

জাতিসংঘের নবম মহাসচিব হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে ৫ বছরের জন্য নিয়োগ পেলেন ৬৭ বছর বয়সী পর্তুগালের সাবেক প্রধানমন্ত্রী আন্তোনিও গুতেরেস। জাতিসংঘের পরবর্তী মহাসচিব হিসেবে মনোনীত  গুতেরেস বিশ্বের সবচেয়ে অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়ানোরও ঘোষণা দিয়েছেন। সেইসাথে এই পদের জন্য মনোনীত হওয়ায় কৃতজ্ঞতা বোধও প্রকাশ করেছেন। বান কি মুনের স্থলাভিষিক্ত জাতিসংঘের নতুন এই কাণ্ডারি বর্তমান বিশ্বে যুদ্ধ ও সন্ত্রাসবাদ, অধিকার হরণ, দারিদ্র্য ও অবিচারের শিকারদের জন্য কাজ করারও প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন।

জাতিসংঘের বর্তমান মহাসচিব হিসেবে দক্ষিণ কোরিয়ার নাগরিক বান কি মুন ১ জানুয়ারি, ২০০৭ সালে দায়িত্বভার গ্রহণ করেন। প্রথম মেয়াদ শেষ হলে তিনি আবার ২১ জুন, ২০১১ সালে দ্বিতীয় মেয়াদে দায়িত্ব নেন। ২০১৬ সালের ৩১ ডিসেম্বর তাঁর মেয়াদ শেষ হবে।

জাতিসংঘের সর্বোচ্চ পদটিতে কখনোই কোনও নারীকে দেখা যায়নি। এবার প্রথমবারের মত একজন নারীকে পাওয়ার আগ্রহ দেখিয়েছিল প্রভাবশালী কয়েকটি দেশ। প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সাতজন নারী-ও ছিলেন। এদের মধ্যে সবচেয়ে সম্ভাবনাময় হিসেবে উচ্চারিত হচ্ছিল বুলগেরিয়ার ইরিনা বোকোভার নাম। তবে তিনি নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যদের ভোটে পিছিয়ে পড়েন। এছাড়া নারী প্রার্থীদের মধ্যে ছিলেন নিউজিল্যান্ডের সাবেক প্রধানমন্ত্রী হেলেন ক্লার্ক, মলদোভার সাবেক উপ-প্রধানমন্ত্রী নাতালিয়া ঘেরমেন, ক্রোয়েশিয়ার সাবেক উপপ্রধানমন্ত্রী ভেসনা পুসিক এবং ইউরোপিয়ান কমিশনের বাজেট ও মানবসম্পদ বিভাগের বর্তমান চেয়ারম্যান ক্রিস্তারিনা গিওরগিভা।

বিবিসি ও রয়টার্স জানায়, গত বুধবার জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের এক  বৈঠকে ১৫ সদস্যের মধ্যে ১৩ সদস্যরাষ্ট্র মহাসচিব হিসেবে আন্তোনিও গুতেরেসের নাম অনুমোদন করে। এরপর বৃহস্পতিবার ১৯৩ সদস্যের জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদ পাঁচ বছরের জন্য গুতেরেসকে নিয়োগ প্রদান করে।

২০১৭ সালে জানুয়ারির শুরুতে তিনি বর্তমান মহাসচিব বান কি মুনের স্থলাভিষিক্ত হবেন। ৬৭ বছর বয়সী গুতেরেস ১৯৯৫ থেকে ২০০২ সাল পর্যন্ত পর্তুগালের প্রধানমন্ত্রী ও ২০০৫ থেকে ২০১৫ পর্যন্ত জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা প্রধানের দায়িত্ব পালন করেছেন। গুতেরেস জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে মানুষের মর্যাদা রক্ষা এবং বৈশ্বিক সমস্যা মোকাবেলা করার অঙ্গীকার করেছেন।