দলীয় পদ হারাচ্ছেন খালেদা-তারেক

দলীয় পদ হারাচ্ছেন খালেদা-তারেক

শেয়ার করুন

khaleda-tareq
নিজস্ব প্রতিবেদক :

হাইকোর্টের আদেশের ফলে বিএনপির কোনো কমিটিতেই থাকতে পারবেন না বেগম খালেদা জিয়া এবং তারেক রহমান। আইন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, নির্বাচন কমিশন বিএনপির সংশোধিত গঠনতন্ত্র গ্রহণ না করলে, আগের গঠনতন্ত্রের ৭ অনুচ্ছেদ বহাল থাকবে। ফলে, দুর্নীতির মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত বিএনপির দুই শীর্ষ নেতাকেই পদ হারাতে হবে।

বিএনপি বলছে, তাদের গঠনতন্ত্র সংশোধন হয়েছিল ২০১৬ সালের ১৯ মার্চ, দলের ষষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিলে। কিন্তু প্রায় দুই বছর এ বিষয়ে গণমাধ্যমে বা অন্য কোথাও বিএনপির কোনো নেতাই কিছু বলেননি। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার রায় ঘোষণার মাত্র এক সপ্তাহ আগে বিএনপির দুই জ্যেষ্ঠ নেতা নির্বাচন কমিশনে এসে জানান, তাদের গঠনতন্ত্ররে ৭ ধারা বাতিল করে সংশোধনী হয়েছে।

বিএনপির গঠনতন্ত্রের ৭ ধারা অনুযায়ী সমাজে দুর্নীতি পরায়ণ বলে পরিচিত ব্যক্তি দলটির জাতীয় নির্বাহী কমিটি, স্থায়ী কমিটি বা সংসদ সদস্য নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী হতে পারবে না। ঠিক তখনই প্রশ্ন ওঠে, এতিমখানা দুর্নীতি মামলায় বেগম জিয়া এবং তারেক রহমান দণ্ডিত হচ্ছেন, এটা বুঝেই কি বিএনপি হঠাৎ ৭ নম্বর ধারার বাতিল করে গঠনতন্ত্রের সংশোধন হয়েছে বলে দাবী করে?

বিএনপির কর্মী হিসেবে কেউ যদি সংক্ষুব্ধ হয়ে গোপনে গঠনতন্ত্র সংশোধনের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে এবং আদালত সেই সংশোধনী গ্রহণ না করতে ইসিকে নির্দেশ দেয়, তাহলে কি দাঁড়াবে বিএনপির অবস্থা প্রশ্ন ছিল আইন বিশ্লেষকদের কাছে।

তারা বলেন এমন হলে দলীয় পদ হারাতে হবে খালেদা জিয়া ও তারে রহমানকে। আর এতে বিএনপিতে জিয়া পরিবারের অস্তিত্ব হুমকির মুখে পড়বে।