জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টে কুয়েতের আমিরের অনুদান বিষয় জিজ্ঞাসা করলেন আদালত

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টে কুয়েতের আমিরের অনুদান বিষয় জিজ্ঞাসা করলেন আদালত

শেয়ার করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক :

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টে কুয়েতের আমিরের অনুদান এসেছিল কিনা? তার পরিমাণ কত? জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় আসামিপক্ষের যুক্তি উপস্থাপনের সপ্তম দিন বেগম খালেদা জিয়ার আইনজীবীর কাছে এসব বিষয় জানতে চান আদালত।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় তৃতীয় দফায় আসামিপক্ষের যুক্তি উপস্থাপনের শেষ দিন ছিল বৃহস্পতিবার। এদিন বেলা সাড়ে ১১টার পর বকশিবাজারের বিশেষ আদালতে হাজির ওই মামলার প্রধান আসামি বেগম খালেদা জিয়া।

এরপরই তাঁর আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলি অসমাপ্ত যুক্তি উপস্থাপন শুরু করেন। এক পর্যায়ে আদালতে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টে কুয়েতের আমিরের অনুদানের সমর্থনে ঢাকার কুয়েত দূতাবাসের একটি প্রত্যায়নপত্র জমা দেন। যেখানে কবে, কি পরিমাণ অর্থ পাঠানো হয়েছে এর উল্লেখ নেই। নেই দূতাবাসের কর্মকর্তার পরিচয়ও।

খালেদা জিয়ার আইনজীবী ব্যারিস্টার মওদুদ বলেন, কুয়েতের আমির ১২ লাখ ডলার পাঠিয়েছেন জিয়া অরফানের নামে। তাতে বেগম জিয়ার কোনো সম্পর্ক নেই।
খালেদা জিয়ার আইনজীবী কাজল বলেন, আদালতে ভুয়া কাগজ জমা দেয়া হয়েছে।

আদালতে বেগম জিয়ার আইনজীবীর আরেকটি যুক্তি ছিল, প্রধানমন্ত্রীর এতিম তহবিলটি ছিল ব্যক্তিগত। এটি রাষ্ট্রীয় কোনো তহবিল নয়।
ব্যারিস্টার মওদুদ বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ২টি ফান্ড। একটি ত্রাণ ও কল্যাণ। আরেকটি ঐচ্ছিক ফান্ড। এর বাইরে প্রধানমন্ত্রীর কোনো ফান্ড নেই।

চতুর্থ দফায় আসামিপক্ষের যুক্তি উপস্থাপনের জন্য আগামী ১০ ও ১১ জানুয়ারি নির্ধারণ করেছেন আদালত। এজে মো: আলী ছাড়াও ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার ও ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের যুক্তি উপস্থাপনের কথা রয়েছে।