শেখ হাসিনাকে হত্যা চেষ্টা মামলায় ১১ জনের ২০ বছর করে সাজা

শেখ হাসিনাকে হত্যা চেষ্টা মামলায় ১১ জনের ২০ বছর করে সাজা

শেয়ার করুন

হাসিনা Bangladeshi Prime Minister Visits Germanyনিজস্ব প্রতিবেদক :

তিন দশক আগে শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টার মামলায় বঙ্গবন্ধুর খুনি খন্দকার আব্দুর রশীদসহ ফ্রিডম পার্টির ১১ নেতা কর্মীকে ২০ বছর করে সাজা দিয়েছেন আদালত। ১৬ অক্টোবর মামলা দুটির যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে রায়ের জন্য দিন ধার্য করা হয়েছিল।

রোববার দুপুরে পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডে চতুর্থ অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ জাহিদুল কবিরের আদালতে ২৮ বছর আগে করা মামলা দুটির রায় ঘোষণা করেন।

এই হত্যাচেষ্টা মামলায় ১২ আসামির ১১ জনকে ১০ বছর করে দু’টি সাজা পর্যায়ক্রমে খাটতে হবে বলে রায় দেন বিচারক। আরেকজনকে বেকুসর খালাস দেওয়া হয়।

১৯৮৯ সালের ১০ আগস্ট মধ্যরাতে ফ্রিডম পার্টির নেতাকর্মীরা শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে ধানমণ্ডির ৩২ নম্বরের বাসভবনে গুলি ও গ্রেনেড নিক্ষেপ করে। ঘটনার সময় তিনি ওই বাড়িতেই ছিলেন। এ ঘটনায় বাড়ির নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা পুলিশ কনস্টেবল জহিরুল ইসলাম মামলা করেন।

মামলার এজাহারে বলা হয়, ফ্রিডম পার্টির সদস্য কাজল ও কবিরের নেতৃত্বে ১০ থেকে ১২ জনের একটি দল শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে গুলিবর্ষণ ও বোমা হামলা করে। মামলার তদন্ত শেষে ১৯৯৭ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়। ২০০৯ সালে আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের মাধ্যমে বিচারকাজ শুরু হয়।

মামলার আসামিরা হলো গোলাম সারোয়ার ওরফে মামুন, জজ মিয়া, ফ্রিডম সোহেল, সৈয়দ নাজমুল মাকসুদ মুরাদ, গাজী ইমাম হোসেন, খন্দকার আমিরুল ইসলাম কাজল, মিজানুর রহমান, হুমায়ন কবির, শাজাহান বালু, লেফটেন্যান্ট কর্নেল আবদুর রশীদ, জাফর আহম্মদ ও এইচ কবির।