এফআর টাওয়ার নির্মাণে অনিয়ম: জড়িত রাজউকের সাবেক চেয়ারম্যানসহ অনেক কর্মকর্তা

এফআর টাওয়ার নির্মাণে অনিয়ম: জড়িত রাজউকের সাবেক চেয়ারম্যানসহ অনেক কর্মকর্তা

শেয়ার করুন

banani-20190329100400
নিজস্ব প্রতিবেদক :

বনানীর এফআর টাওয়ার নির্মাণে নানা অনিয়মের সঙ্গে জড়িত রাজউকের সাবেক চেয়ারম্যান হুমায়ূন খাদেমসহ অর্ধশতাধিক কর্মকর্তা-কর্মচারি। গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় এবং রাজউকের আলাদা তদন্ত রিপোর্টে এ তথ্য উঠে এসেছে। ভবনটির ১৯ থেকে ২৩ তলা পর্যন্ত নির্মাণ করা হয়েছে সম্পূর্ণ অবৈধভাবে।

গত ২৮ মার্চ বনানীর এফআর টাওয়ারে আগুনের ঘটনায় আলাদা তদন্ত কমিটি গঠন করে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় এবং রাজউক। বুধবার দুটি কমিটির দেয়া রিপোর্ট সম্পর্কে জানাতেই সচিবালয়ে  পূর্তমন্ত্রীর এই সংবাদ সম্মেলন।

মন্ত্রী জানান, এফআর টাওয়ারের ১৫ তলা পর্যন্ত নির্মাণ প্রক্রিয়া ঠিক থাকলেও তারপর ঘটে নানা অনিয়ম। ১৬ থেকে ১৮ তলা পর্যন্ত বাড়ানোর আবেদন প্রক্রিয়া যথাযথ থাকলেও এর  অনুমোদন দেয়া হয়েছে আইন লঙ্ঘন করে। আর এর ওপরের অংশ বেড়েছে সম্পূর্ণ অবৈধভাবে।

তদন্ত রিপোর্টে বলা হয়, এফআর টাওয়ারের বর্ধিত অংশের অনুমোদন, নির্মাণ, তদারকি সব ক্ষেত্রেই অনিয়ম ও জালিয়াতি হয়েছে। যার সঙ্গে নির্মাতা প্রতিষ্ঠান, ভবন মালিক ও রাজউকের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারির জোগসাজশ রয়েছে। কমিটি জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করেছে জানিয়ে গণপূর্তমন্ত্রী বলেন, কাউকে ছাড় দেয়া হবেনা।

অন্যদিকে এফআর টাওয়ারে আগুনের পর ঢাকা এবং এর পার্শ্ববর্তী এলাকার ১ হাজার ৮১৮টি বহুলতল ভবন পরিদর্শন করে রাজউকের ২৪টি টিম। যার মধ্যে ৪৩১টি ভবনের মালিক রাজউক অনুমোদিত নকশা দেখাতে পারেননি বলে জানান মন্ত্রী। ৪৪টি সরকারি ভবনেরও নকশা পাওয়া যায়নি।

বনানীর এফআর টাওয়ারে আগুনের ঘটনায় ২৬ জনের মৃত্যু হয়।