যাহা ৫৭ তাহাই ৩২!

যাহা ৫৭ তাহাই ৩২!

শেয়ার করুন

Computer-security-lock-privacy-images

নিজস্ব প্রতিবেদক:

তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারা বাতিল করা হয়েছে। তৈরি হয়েছে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন। এই আইনের ৩২ ধারায় ফিরিয়ে আনা হয়েছে ৫৭ ধারাকেই। শাস্তি ১৪ বছরের জেল। আইনের এই ধারাটি গনমাধ্যমের মত প্রকাশের স্বাধীনতা খর্ব করবে বলে সমালোচনা করেছেন সংশ্লিষ্টরা।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও আইনটি নিয়ে উঠেছে সমালোচনার ঝড়। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ এর খসড়া অনুমোদন করেছে সরকার। আইনের সবচেয়ে আলোচিত ধারা ৩২।

এখানে বলা হয়েছে ‘সরকারি, আধা সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানে কেউ যদি বেআইনিভাবে প্রবেশ করে কোনো ধরনের তথ্য উপাত্ত, যে কোনো ধরনের ইলেকট্রনিক যন্ত্রপাতি দিয়ে গোপনে রেকর্ড করে, তাহলে সেটা গুপ্তচরবৃত্তির অপরাধ হবে।

এ অপরাধে ১৪ বছর কারাদণ্ড ও ২০ লাখ টাকা জরিমানা বা উভয় দন্ড হতে পারে। সংশ্লষ্টিদের মতে আইনের এই ধারার মাধ্যমে গনমাধ্যমের কন্ঠরোধের চেষ্টা করা হচ্ছে। তথ্যপ্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় ইলেক্ট্রনিক ফরমে মিথ্যা, অশ্লীল বা মানহানিকর তথ্য প্রকাশের শাস্তি ছিল ৭ থেকে ১৪ বছরের কারাদণ্ড এবং সর্বোচ্চ এক কোটি টাকা অর্থদণ্ড।

তাই সামাজিক মাধ্যমে অনেকেই বলছেন যাহা ৫৭ তাহাই ৩২। উল্টো ৩২ ধারাকে আরও শাক্তিশালী করা হয়েছে। অনেকেই বলছেন, দূর্নীতিবাজ আমলাদের চাপে পড়ে, কিংবা দূর্নীতিবাজদের বাঁচাতে সরকার এই আইন তৈরি করছে।

৫৭ বা ৩২ । যে নামেই ডাকা হোক এটি গনমাধ্যমের জন্য স্বাধীন এবং অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা বিরোধী ভয়ংকর কালো আইন বলে মনে করা হচ্ছে। যাতে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হবে গনমাধ্যম।