মুক্তিকামী জনগণের জন্য সব নির্দেশনাই ছিল বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণে: প্রধানমন্ত্রী

মুক্তিকামী জনগণের জন্য সব নির্দেশনাই ছিল বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণে: প্রধানমন্ত্রী

শেয়ার করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক:

স্বাধীনতা অর্জনের পথে মুক্তিকামী জনগণের জন্য সব নির্দেশনাই ছিল বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণে। এমন মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, শুধু স্বাধীনতা নয়; অর্থনৈতিক মুক্তির দিক নির্দেশনাও ছিল ঐতিহাসিক ওই ভাষণে।

মঙ্গলবার সংসদে এক ধন্যবাদ প্রস্তাবের আলোচনায় অংশ নিয়ে এমন কথা বলেন তিনি।

মঙ্গলবার সংসদ অধিবেশনের কার তালিকায় দুটি বিল উত্থাপন ছাড়া বাকি সময়টা নির্ধারিত ছিল, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণ ইউনেস্কোর বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্যের স্বীকৃতি পাওয়ায়, ইউনেস্কো ও সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানাতে একটি ধন্যবাদ প্রস্তাবের উপর আলোচনা।

প্রস্তাবটি উত্থাপন করেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।প্রায় সব দলেরই বিপুল সংখ্যক সংসদ সদস্য আলোচনায় অংশ নিয়ে বলেন, প্রকৃত অর্থে ৭ই মার্চেই বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণা করছিলেন।

যথারীতি সব শেষে সংসদ নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বক্তৃতা করেন। তিনি বলেন, কিভাবে বাংলাদেশের স্বাধীনতা আসবে তার পুরো নির্দেশনাই ছিল ৭ই মার্চের সেই ভাষণে।

৭ই মার্চের সেই ভাষণের জন্য কিভাবে তৈরি হয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু, প্রধানমন্ত্রী বললেন তার প্রেক্ষাপটও। প্রধানমন্ত্রী বললেন, দুঃখের বিষয় হল ১৫ই আগষ্ট বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর, ৭ই মার্চের সেই ভাষণ বাংলাদেশে এক প্রকার নিষিদ্ধই হয়ে পড়েছিল।