বরাবরে মত এবারের ঈদেও এটিএন বাংলার বর্ণাঢ্য আয়োজন

বরাবরে মত এবারের ঈদেও এটিএন বাংলার বর্ণাঢ্য আয়োজন

শেয়ার করুন

AMI TOMAR HOBO_1বিনোদন ডেস্ক :

বরাবরের মত এবার ঈদেও ১০ দিন ব্যাপী বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের আয়োজন করছে দেশের প্রথম বেসরকারি স্যাটেলাইট টেলিভিশন চ্যানেল এটিএন বাংলা। অনুষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে এক ঘণ্টার নাটক, ধারাবাহিক নাটক, বাংলা সিনেমা, ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান, শিশুদের অনুষ্ঠান, সঙ্গীতানুষ্ঠানসহ নানা আয়োজন।

এবারের আয়োজনের উল্লেখযোগ্য অনুষ্ঠানগুলো :

১০ পর্বের বিশেষ ধারাবাহিক ‘সময়টা আমাদের’     

ঈদ উল আযহার বিশেষ অনুষ্ঠানমালায় এটিএন বাংলায় প্রচার হবে ১০ পর্বের ধারাবাহিক নাটক ‘সময়টা আমাদের’। ঈদের দিন থেকে দশম দিন পর্যন্ত রাত ৭.৩০ মিনিটে প্রচার হবে নাটকটি। মোহন খান এর রচনা ও পরিচালনায় নির্মিত এই নাটকটিতে অভিনয় করেছেন সজল, মিলা, দীপা খন্দকার, বন্যা মির্জা, আহসান হাবিব নাসিম, জয়ন্ত চট্টপাধ্যায়,অরুনা বিশ্বাস, আযম খান আরো অনেকে।

নাটকের গল্প আবর্তিত হয়েছে এভাবে- পুরান ঢাকার বাসিন্দা ওহাব হাজী। বাড়ীতে একা থাকেন। কাজের মেয়ে নাওমুন তার সর্বক্ষনিক সময়ের সঙ্গী। নাওমুনের বিয়ে হয়েছিল দুইবার। তবে একটাও টিকেনি। পাড়ার একজন ছেলে কেরাম। দিনের প্রায় পুরোটা সময় কাটে তার ওহাব সাহেবের বাসায়। ওহাব সাহেবের এক ছেলে রিয়াজ। এম এ পাশ করে চাকরী করে ব্যাংকে। বউ আর ছোট্ট একটি ছেলে নিয়ে বনানীতে থাকে। সপ্তাহে নিয়ম করে একদিন এসে বাবাকে দেখে যায়। Shomoyta Amader_3

ওহাব সাহেবের ছোট বোন জানু বেগম প্রায়ই এ বাসায় আসেন তার মেয়ে লতিফাকে নিয়ে। জানু বেগমের আসার উদ্দেশ্য ওহাব সাহেবের এ বাড়ীতে তার নিজের অংশটুকু লিখে নেয়া। এক সময় বুঝা যায় কেরামের এবাড়ীতে পড়ে থাকার কারন। কেরাম পছন্দ করে জানু বেগমের মেয়ে লতিফাকে। পুরান ঢাকার ঐতিহ্য, সংস্কৃতি এবং তাদেরই নতুন প্রজন্ম রিয়াজ এর শিক্ষা দীক্ষা ও জীবন যাত্রা এই দুটোর বর্তমান অবস্থা নিয়ে ‘সময়টা আমাদের’ নাটকের গল্প আবর্তিত হয়।

১০ পর্বের ধারাবাহিক ‘অতি ভক্তি চোরের লক্ষন’

এটিএন বাংলার ঈদ অনুষ্ঠানমালায় প্রচার হবে ১০ পর্বের ধারাবাহিক নাটক ‘অতি ভক্তি চোরের লক্ষন’। ঈদের দিন থেকে দশম দিন পর্যন্ত রাত ৯.৩০ মিনিটে প্রচার হবে নাটকটি। আকাশ রঞ্জনের রচনা ও পরিচালনায় নির্মিত নাটকটিতে অভিনয় করেছেন এটিএম শামসুজ্জামান, সাজু খাদেম, মীশু সাব্বির, আমিরুল হক চৌধুরী, নাদিয়া আহমেদ, অর্ষা, নওশীন,  সাঈদ বাবু,  চিত্রলেখা গুহ,  অলিউল হক রুমী, জামাল রাজা প্রমুখ।

OTI VOKTI CHORER LOKKHON_4আজগর আলী গ্রামের প্রভাবশালী শিক্ষিত একজন ব্যক্তি। তার কথা অমান্য করার কারো সাহস নাই। আজগর আলীও তার বাবার নাম যশ খ্যাতি ধরে রাখার জন্য কোন অন্যায়ের সাথে আপোষ করে না। এই বিষয়টা আজগর আলীর একান্ত সহকারী মোসলেমের মোটেও পছন্দ না। তাই সে আজগর আলীর প্রতি ভক্তির মাত্রা বাড়িয়ে দিয়ে তার প্রিয় পাত্র হয়ে উঠে। অপরদিকে, কদম আলী অর্থবিত্তশালী মূর্খ একজন লোক। গ্রামের যুবক শ্রেণী তাকে বেশী ভক্তি করে এর একমাত্র  কারন তার সুন্দরী মেয়ে টুম্পা। কদম আলী বিষয়টা বুঝতে না পারলেও তার ভাগ্নে বারেক বিষয়টা বুঝেও না বোঝার ভান করে কদমকে নির্বাচন ও সামাজিক কিছু অনুষ্ঠানে অর্থের বিনিময়ে অতিথি বানানোর পায়তারা করেন। এভাবে নানান  রহস্যজনক ঘটনা প্রবাহ নিয়ে রসাতœক আঙ্গিকে এগিয়ে যাবে গল্পটি। দর্শক বুঝতে পারবে একজন মানুষকে  জীবিত অবস্থায় মৃত বানাতে অতিভক্তিই যথেষ্ট। জীবিত মৃতর চেয়ে মরে যাওয়া অনেক ভালো।

খন্ড নাটক ‘চুটকি ভান্ডার-৬’

Chutki Bhanadar-1কয়েক বছর যাবত এটিএন বাংলার ঈদ অনুষ্ঠানমালায় প্রচার হচ্ছে হবে খন্ড নাটক ‘চুটকি ভান্ডার’। এবারের ঈদে প্রচার হবে ‘চুটকি ভান্ডার-৬’। ঈদের দিন থেকে শুরু করে দশম দিন পর্যন্ত রাত ৮টায় প্রচার হবে নাটকটি। ফজলুল সেলিম, বরজাহান হোসেন, রুহুল আমিন পথিকের রচনায় নাটকগুলো পরিচালনা করেছেন শামীম জামান। বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন সাজু খাদেম, আরফান আহমেদ, আ খ ম হাসান, শামীম জামান, জয়রাজ, তারেক স্বপন, আমি আজাদ অহনা, শামিমা তুষ্টি, নাবিলা ইসলাম প্রমুখ।  প্রচলিত এবং জনপ্রিয় চুটকি বা কৌতুক নিয়ে নাটকগুলো নির্মিত হয়েছে।

ইভা রহমানের ‘মনের রঙে রাঙাবো’

এই ঈদে ইভা রহমান হাজির হচ্ছেন ‘মনের রঙে রাঙাবো’ শিরোনামের গানের অনুষ্ঠান নিয়ে। অনুষ্ঠানটি প্রচারিত হবে ঈদের দিন, রাত ১০.৩০টায়। উল্লেখ্য শিল্পী ইভা রহমানের গাওয়া গান নিয়ে এ পর্যন্ত ২৪টি অ্যালবাম প্রকাশিত হয়েছে। এসব অ্যালবাম থেকেই বাছাই করা হয়েছে গানগুলো। আর গানগুলো চিত্রায়িত হয়েছে দেশে এবং দেশের বাইরের মনোরম সব লোকেশনে।EVA RAHMAN (2)

এবারের অনুষ্ঠানের গানগুলো নির্বাচন করা হয়েছে মনের না বলা কথা, মন ভেসে যায়, মন জোনাকী, মনে পড়ে যায়, মনের যে কথা, মন আধার, মন থেকে দূরে নও, মন আমার, মন সাগড়ে ভাসি এবং মনের তুলিতে আকি অ্যালবাম থেকে। জাহিদ আকবর, সাজ্জাদ হুসাইন, শাহান কবন্ধ, ত্রীদেব রয়, রাজেশ ঘোষ, স্বপ্নীল, শামীম আহমেদ, শেখ রেজা শানু, গোপী রায় এবং প্রদীপ সাহার কথা এবং আইয়ুব বাচ্চু, বাপ্পা মজুমদার, রাজেশ ঘোষ এবং মান্নান মোহাম্মদ এর সুর ও সঙ্গীতায়োজনে গাওয়া গানগুলো হলো ‘অধিকার’, লুকোচুরি খেলায় মন, নীল খাম, কেন ভালোবাসোনা আমায়, দূরে যাবো চলে, তুমি আছো তাই আমি, সারি সারি আপেক্ষা, কিছু কিছু কথা বুকের, কিছু স্বপ্ন কখনো পূরণ হয়, মনের আঙ্গিনায়, কি যে ভালো লাগে, আমার কিছু কথা ছিলো, এই তো ছিল ভালো, উডু মেঘের ডানায় উড়– চিঠি।

আফজাল-সুবর্ণার ‘নূরুল আলমের মধুচন্দ্রিমা’

এটিএন বাংলায় ঈদের পরদিন রাত ৮.৩০ মিনিটে প্রচার হবে নাটক ‘নূরুল আলমের মধুচন্দ্রিমা’। এটি ঈদুল ফিতরে প্রচারিত নূরুল আলমের বিয়ে নাটকের সিক্যুয়াল। বদরুল আনাম সৌদের রচনায় নাটকটি  পরিচালনা করেছেন আরিফ খান। অভিনয় করেছেন আফজাল হোসেন ও সুবর্ণা মুস্তাফা।
NURUL ALAMER MODHUCHONDRIMA_7এবারের গল্পে দেখা যাবে- নরুল আলম ও নিশাত বেগমের বিয়ে হয়েছে মাস খানেক হয়ে গেলো প্রায়। শত ইচ্ছা থাকা স্বত্ত্বেও নানা ঝামেলায় মধুচন্দ্রিমায় যাওয়া এখনো হয়ে ওঠেনি তাদের। শেষ পর্যন্ত এক সকালে মধুচন্দ্রিমা পালনের জন্য রওনা হলেও কিছুদুর যেতে না যেতেই গাড়ি নষ্ট হয়ে ফিরে আসে তারা। এবার মধুচন্দ্রিমার পরিকল্পনা নিজে হাতে তুলে নেন নিশাত বেগম। ম্যাপ নিয়ে বসেন কোথায় যাবেন সেটা ঠিক করতে। ঠিক এই সময় এক তরুণী উপস্থিত হয় নিশাত বেগমের কাছে আবদার নিয়ে, তাও আবার ঢাকা থেকে। আবদার তার যে করেই হোক এক সপ্তাহের মধ্যে তাকে তার পছন্দ মত ছেলের সঙ্গে বিয়ে করিয়ে দিতে হবে। নয়তো মেয়েটির বাবা তার পছন্দের ছেলের সাথে বিয়ে করিয়ে দেবে।
মেয়েটি থাকতে শুরু করে এই বাড়িতেই। নিশাত বেগম তো খোঁজেই, নূরুল আলমও ছেলে খোঁজা শুরু করে তানি’র জন্য। এরমাঝে নিশাত বেগমের ছেলে আজাদ আসে ঢাকা থেকে। নূরুল আলম আজাদ-তানি’র বিয়ের প্রস্তাব দেয়। নূরুল আলম ও নিশাত বেগম যতই চেষ্টা করে তাদের মিল করানোর, ততই বিগড়ায় ঘটনা।

ঈদের নাটক ‘জলরং’

এটিএন বাংলায় ঈদের তৃতীয় দিন রাত ৮.৩০ মিনিটে প্রচার হবে ঈদের নাটক ‘জলরং’। সারওয়ার রেজা জিমির সংলাপ ও চিত্রনাট্যে নাটকটি পরিচালনা করেছেন তুহিন হোসেন। অভিনয়ে জোভান, তানজিন তিশা, হিন্দোল রয়, শহিদুল্লাহ সবুজ, রফিক সহ আরো অনেকে।
Jol Rong_2তুষার জেলা শহরের কলেজে প্রথম বর্ষে পড়ে। কিন্তু পড়াশোনার চেয়ে দলবেঁধে বাঁদরামি করে বেড়ানোতেই তার উৎসাহ বেশি। এই নিয়ে বিস্তর ঝামেলাও লেগে থাকে বাসায়। একদিন রাজশাহী থেকে বাবার সঙ্গে বদলি হয়ে এলো এক মেয়ে, বদলে দিলো তুষারের জীবনও। মুনিয়া ভর্তি হলো একই কলেজে। কিন্তু ভালো লাগার কথা মুনিয়াকে বলা সম্ভব হয় না তুষারের। মুনিয়া ভালো ছবি আঁকে। তুষার তাকে নিয়ে গেল নদীর ধারে, যেখানে মুনিয়া আঁকতে পারবে জলরং ছবি। ওদের মধ্যে বন্ধুত্ব হয়ে গেল। ক্রমে এইচএসসি পরীক্ষা ঘনিয়ে এলো। মুনিয়া চলে যাবে ঢাকায়, ইউনিভার্সিটিতে ভর্তির জন্য প্রস্তুতি নিতে। হঠাৎ করেই তুষার বুঝলো, তার প্রথম প্রেম অব্যক্তই থেকে যাচ্ছে। যাবার আগে মুনিয়া তুষারকে একটি ছবি উপহার দেয়। তুষার ছবিটা খুলে দেখলো, নদীর ধারের সূর্যাস্তের ছবি, তাতে একটা ছেলে আর একটা মেয়ে বসে আছে পাশাপাশি। নিচে লেখা, বেস্ট ফ্রেন্ড। বাস ছেড়ে গেল। তুষারের বলা হলো না তার ভালোবাসার কথা। তার প্রথম ভালোবাসা একটা জলরঙ ছবি হয়ে রয়ে গেল হৃদয়ের গভীরে।

কমেডি নাটক ‘নার্ভাস ব্রেক ডাউন’

এটিএন বাংলার ঈদ অনুষ্ঠানমালায় প্রচার হবে নাটক ‘নার্ভাস ব্রেক ডাউন’। ঈদের চতুর্থ দিন রাত ৮.৩০ মিনিটে প্রচার হবে নাটকটি। কমেডি নির্ভর এই নাটকটি রচনা করেছেন শৌর্য দীপ্ত সূর্য। পরিচালনা করেছেন জাহিদ হাসান।  অভিনয় করেছেন জাহিদ হাসান, উর্মিলা শ্রাবন্তি কর, আলীরাজ, রাশেদা চৌধুরী প্রমুখ।
Nerves Breakdownহাসনাত একটি বেসরকারী কোম্পানীতে এক্সিকিউটিভ পদে মৌখিক পরীক্ষা দিতে আসে। টেনশনে ওয়াশ রুমে ঢোকে। এরপর  হাসনাত দৌড় দিয়ে পালিয়ে যায়। বন্ধুরা যখন তাকে ধরে বোর্ড বসিয়ে দেয় তখন ইন্টারভিউ বোর্ডের সদস্যরা অবাক হয়ে দেখে যে, হাসনাত কোনদিন কোন পরীক্ষায় সেকেন্ড হয়নি। ইন্টারভিউ বোর্ডকে অবাক করে হাসনাত তাদের সমস্ত প্রশ্নের উত্তর দেয়।  এভাবেই গল্প শুরু হয়।

একালের জমিদারের উত্তরসূরী এখলাস হোসেন একমাত্র পুত্র হাসনাতকে কঠিন নিয়ম কানুন আর অনুশাসনের মধ্য দিয়ে বড় করেছে। বাবার আদেশ অনুযায়ী তাকে প্রত্যেক পরীক্ষায় প্রথম হতে হতো। এই কারনেই প্রতি পরীক্ষার দিন হাসনাত দৌড়ে পালিয়ে যাবার চেষ্টা করতো। এই নিয়মের মধ্যে হাসনাতের মধ্যে পরীক্ষা ভীতি তৈরৗ হয়। তৈরী হয় এক ধরনের নার্ভাস ব্রেক ড্রাউন।  বাবার মৃত্যু খবরে ঢাকা থেকে হাসনাত গ্রামে আসে। মৃত বাবাকে ধরে কান্নাকাটির সময় বাবা উঠে বসে। তিনি ছেলের বিয়ের আয়োজন করেন। রাতে সুযোগ বুঝে হাসনাত পালিয়ে যায়। ঘটনাক্রমে আশ্রয় নেয় একটি বাড়ীতে। এগিয়ে চলে নাটকটির গল্প।

সেলিব্রেটি শো ‘স্টার ক্যানভাস’

গত বছর ঈদ উল ফিতর এর বিশেষ অনুষ্ঠানমালায় প্রচারের মধ্যে দিয়ে এটিএন বাংলায় সম্প্রচার শুরু হয়েছে সেলিব্রেটিদের অংশগ্রহণে বিশেষ আড্ডার অনুষ্ঠান ‘স্টার ক্যানভাস’। অনুষ্ঠানটি পরবর্তীতে ঈদ উল আযহার বিশেষ অনুষ্ঠানমালায় প্রচার হয়। সেলিব্রেটি তারকাদের অংশগ্রহণের এ অনুষ্ঠানটি দর্শকদের মাঝে ব্যাপক সাড়া ফেলে। এরই ধারাবাহিকতায় এ বছর ঈদেও তারকাদের অংশগ্রহণে এটিএন বাংলায় প্রচার হবে সেলিব্রেটি শো ‘স্টার ক্যানভাস’। STAR CANVAS 1এবারের আয়োজনে অংশগ্রহণ করেছেন বরেণ্য যাদুশিল্পী জুয়েল আইচ, চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন, ফেরদৌস, চিত্রনায়িকা পূর্ণিমা এবং নিপুন। সেলিব্রেটি এসব তারকারা একেক জন একেক পর্বে অংশগ্রহণ করবেন। অনুষ্ঠানগুলো ধারাবাহিকভাবে প্রচার হবে ঈদের পঞ্চমদিন থেকে নবমদিন পর্যন্ত দুপুর ২টা ২০ মিনিটে। ভিন্ন আঙ্গিকে সাজানো অনুষ্ঠানটিতে থাকছে ছোট ছোট একাধিক সেগমেন্ট। উপস্থাপিকার সাথে আলাপচারিতায় উঠে আসবে অনুষ্ঠানে আগত তারকা শিল্পীদের নানান অজানা ও চমকপ্রদ তথ্য। দর্শকরা জানতে পারবেন তাঁদের ব্যস্ততা, খাদ্যাভাস, কাজের অভিজ্ঞতা, সময়ের চ্যালেঞ্জ, স্টেজ পারফর্মেন্স, জীবনের চাওয়া ও প্রাপ্তির সমীকরণ ইত্যাদি। প্রিয় তারকাদের নানা বিষয় নিয়ে ভক্তদের থাকে নানা রকম আগ্রহ। ছোট বা বড় পর্দা কিংবা সঙ্গীত জগত। যে অঙ্গনেরই হোক না কেন ভক্তরা চান প্রিয় তারকাদের মুখের কথা শুনতে। আর এজন্যই ঈদের বিশেষ অনুষ্ঠানমালায় প্রিয় তারকাদের অংশগ্রহণে নির্মিত হয়েছে অনুষ্ঠানটি। এবারের স্টার ক্যানভাস অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেছেন শ্রাবণ্য তৌহিদা। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেছেন সেলিম দৌলা খান।

বসগিরি’র ওয়ার্ল্ড টিভি প্রিমিয়ার

ঈদ উল আযহা উপলক্ষে ১০ দিনব্যাপী বিশেষ অনুষ্ঠান প্রচার করবে এটিএন বাংলা। বিশেষ এই আয়োজনে প্রতিদিন দু’টি করে চলচ্চিত্র প্রচার করা হবে। চলচ্চিত্রগুলো প্রতিদিন সকাল ১০.৩০ মিনিট এবং দুপুর ৩টা প্রচার হবে। প্রচারিতব্য চলচ্চিত্রগুলোর মধ্যে অন্যতম সেরা আকর্ষণ হলো শাকিব খান ও বুবলি অভিনীত ‘বসগিরি’ চলচ্চিত্র। জনপ্রিয় এবং ব্যবসা সফল চলচ্চিত্রটির ওয়ার্ল্ড টিভি প্রিমিয়ার হবে এটিএন বাংলায়। ঈদের পরদিন দুপুর ৩টায় প্রচার হবে শামীম আহমেদ রনী পরিচালিত এ চলচ্চিত্রটি। বসগিরিসহ এবারের ঈদে শাকিব খান অভিনীত ১২টি চলচ্চিত্র প্রচার করবে এটিএন বাংলা।

BOSSGIRI_1

এছাড়াও ঈদ অনুষ্ঠানমালায় প্রচার হবে লাভার নাম্বার ওয়ান, জান কোরবান, ঢাকা অ্যাটাক, আমার বুকের মধ্যিখানে, নাম্বার ওয়ান শাকিব খান, কাবিননামা, তোমাকে বউ বানানো, লোভে পাপ পাপে মৃত্যু, মা আমার স্বর্গ, মাটির ঠিকানা, জান আমার জান, পূর্ণদৈর্ঘ্য প্রেম কাহিনী-২, সোনাবন্ধু শিরোনামের চলচ্চিত্র।
বাংলাদেশের জনপ্রিয় এবং ব্যবসাসফল ছবির পাশাপাশি এবারের ঈদে হলিউডের সাড়া জানানো ৫টি চলচ্চিত্র প্রচার করা হবে। চলচ্চিত্রগুলো বাংলায় ডাবিং করে প্রচার করা হবে। ঈদের দিন দুপুর ৩টায় প্রচার হবে জেমস ক্যামেরন পরিচালিত চলচ্চিত্র ‘টাইটানিক’। এছাড়াও ঈদের ৩য় দিন সকাল ১০.৩০ মিনিটে প্রচার হবে মেল গিবসন পরিচালিত চলচ্চিত্র ‘ব্রেভহার্ট’, ৪র্থ দিন সকাল ১০.৩০ মিনিটে প্রচার হবে ‘দ্য ট্রান্সপোর্টার’, ৫ম দিন সকাল ১০.৩০ মিনিটে রয়েছে ‘ডাইহার্ড-৪’ এবং ৬ষ্ঠদিন সকাল ১০.৩০ মিনিটে প্রচার হবে ‘এক্স ম্যান: ইউনাইটেড’।

ঈদের নাটক ‘গল্পের শেষে’

এটিএন বাংলায় ঈদের ৫ম দিন রাত ৮.৩০ মিনিটে প্রচার হবে বিশেষ নাটক ‘গল্পের শেষে’। কামরুল আহসানের রচনায় নাটকটি পরিচালনা করেছেন সকাল আহমেদ। অভিনয়ে মাহফুজ আহমেদ, নাদিয়া, অর্ষা প্রমুখ।
নাটকরে গল্পে দেখা যাবে- মাহফুজ আহমেদ ও নাদিয়া স্বামী-স্ত্রী। মাহফুজ একটি মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানীতে চাকরী করে। সারাদিন অফিস থেকে ফেরার পরে স্ত্রী নাদিয়া তার কাছে অফিসের গল্প শুনতে চায়। মাহফুজও অফিসের খুটিনাটি সব ঘটনা গুছিয়ে স্ত্রীকে বলে। এভাবে গল্পে গল্পে তাদের বিয়ের চারটি বছর পার হয়ে যায়। এখন আর মাহফুজ গল্প বলতে উৎসাহ পায়না। তার কাছে মনে হয় একই গল্পই সে ঘুরে ফিরে বলছে। তাই বিরক্তি চলে আসে। ওদিকে বউ গল্প শুনতে না পেরে অভিমান করে বসে। বউকে ভালোবাসে বলে মাহফুজের মন খারাপ হয়। এমনি সময়ে অফিসে তার সাথে একজন লেখকের পরিচয় হয়। মাহফুজ লেখকের কাছ থেকে টাকার বিনিময়ে গল্প কিনতে শুরু করে। ই মেইলে পাঠানো গল্প পাঠায় আর সে রাতে বাসায় গিয়ে নাদিয়াকে তা বলে। কেনা গল্প দিয়ে আবারো তাদের সংসারে সুখ ফিরে আসে। একদিন ভুল করে মাহফুজ বাসায় ল্যাপটপ রেখে অফিসে যায়। ই মেইল আসলে সেখানে সাবজেক্টে নিজের নাম দেখতে পেয়ে কৌতুহল জাগে নাদিয়ার। একে একে লেখকের পাঠানো সব ই মেইলে পাঠানো গল্পগুলো পড়ে সে। এভাবেই এগিয়ে যেতে থাকে ঈদের নাটক ‘গল্পের শেষে’।

KONO EK BOROSAI_3
ঈদের বিশেষ নাটক ‘কোনো এক বর্ষায়’

এটিএন বাংলার ঈদ অনুষ্ঠানমালায় প্রচার হবে বিশেষ নাটক ‘কোন এক বর্ষায়’। নাটকটি ঈদের ষষ্ঠ দিন রাত ৮.৩০ মিনিটে প্রচার হবে। বদরুল আনাম সৌদের রচনায় নাটকটি পরিচালনা করেছেন চয়নিকা চৌধুরী। বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন তারিক আনাম খান, সুবর্ণা মুস্তাফা, ডলি জহুর প্রমুখ।
হায়দার ও রেহনুমা আলাদা হয়েছে প্রায় মাস ছয়েক হয়ে গেলো। অবস্থা দেখে মনে হচ্ছে না আর কখনো একসাথে থাকবে তারা। যদিও নিজেদের সমস্যা নিয়ে কয়েকবার বসেছে তারা, কিন্তু কোন সমস্যারই কোন সমাধান বের হয়নি। ধরে নিয়েছিলো দুজনই, একটু বেশী বয়সে বিয়ের কারনে এমন একটা মানসিক অবস্থায় পৌছে গিয়েছে তারা, যেখানে কেউই আর কমপ্রোমাইজ এর ক্ষেত্রে আগ্রহী না। ছুটির দিন একা বসে ছিলো হায়দার বাড়িতে। ডোরবেল বাজে, হায়দার দরজা খুলতেই দেখতে পায় রেহনুমা’কে। খুবই বিধ্বস্থ দেখাচ্ছে রেহনুমা’কে। বসায় হায়দার রেহনুমা’কে। এরমাঝে হায়দার জানতে পারে ক্যান্সার হয়েছে রেহনুমা’র। এখন লাষ্ট এইজে আছে। এই সময় বলে রেহনুমা- রেহনুমা কি তার শেষ ক’টা দিন, মানে এখন থেকে শেষ পর্যন্ত হায়দারে’র সাথে থাকতে পারে? নির্দ্বিধায় রাজী হয়ে যায় হায়দার। এবং সেদিন বিকেলেই নিজের জিনিস পত্র নিয়ে রেহনুমা চলে আসে এই বাড়িতে। এবার গল্পটা একেবোরেই ভিন্ন হয়। হায়দার চেষ্টা করে রেহনুমা’র প্রানপন খেয়াল রাখতে, তাকে ভালোবাসা আর মায়ায় জড়িয়ে রাখতে।

বিশেষ নাটক ‘যে গল্পের শেষ নেই’

এটিএন বাংলায় ঈদের ৭ম দিন রাত ৮.৩০ মিনিটে প্রচার হবে বিশেষ নাটক ‘যে গল্পের শেষ নেই’। পারভেজ ইমামের রচনায় নাটকটি পরিচালনা করেছেন দীপু হাজরা। অভিনয়ে জোভান, আজমেরী আশা , নাবিলা ইসলাম , মনোজ
JE GOLPER SESH NEI_2সুমন আর মোহনা একে অপরকে ভালবাসে, সুমন ব্যবসার কাজে নেপাল আসে, সাথে নিয়ে আসে মোহনাকে। মোহনা তার মাকে মিথ্যা কথা বলে সুমনের সাথে আসে। নেপালে গিয়ে তারা একটি হোটেলে দু’টি রুম নিয়ে উঠে। এতে সুমন কিছুটা মনক্ষুন্ন হলেও মোহনার কারনে সে কিছু বলে না কারন মোহনার কারনেই সুমন আজ প্রতিষ্ঠিত ব্যসায়ী। নেপালে আসার পর সুমন আর মোহনার মাঝে বিভিন্ন ঘটনা ঘটতে থাকে যা সুমনকে বিস্মিতি করে। কারন যেসব ঘটনা সুমনের সাথে ঘটছে তা সুমনের  অতীতের ঘটে যাওয়া ঘটনা। যখন সে তার পূর্বের প্রেমিকা জয়াকে নিয়ে নেপালে ঘুরতে আসে, কিন্তুু জয়ার পাহাড় থেকে পড়ে মৃত্যুবরণ করে। কিন্তু প্রকৃত ঘটনা সবার অজানা থেকে যায়। এখন সেই একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি সুমন আর মোহনার মাঝে ঘটছে। হঠাৎ একদিন সুমনও নেপালের এক পাহাড় থেকে পড়ে মৃত্যুবরণ করে। নেপালের খবরের কাগজে খবর ছাপা হয়। এই দুই মৃত্যুর নেপথ্যে কে ? পরে বের হয়ে আসে আসল সত্য। এমনই একটি গল্প নিয়ে নির্মিত হয়েছে  নাটক যে গল্পের শেষ নেই।

ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘ঈদের বাজনা বাজেরে’

এটিএন বাংলার ঈদ অনুষ্ঠানমালায় প্রচার হবে ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘ঈদের বাজনা বাজেরে’। অনুষ্ঠানটি ঈদের সপ্তম দিন রাত ১০.৩০ মিনিটে প্রচার হবে। খন্দকার ইসমাইল এর উপস্থাপনা ও পরিচালনায় বর্ণাঢ্য আলোঝলমলে সেটে জমকালো পরিবেশনা আর ব্যতিক্রমী সব আয়োজন নিয়ে সাজানো হয়েছে এবারের বিশেষ ঈদ ম্যাগাজিন ঈদের বাজনা বাজেরে। ঈদ মানে সবার মাঝে আনন্দ বিলিয়ে দেয়া। ঈদ মানে সবাই মিলে সুন্দর থাকা। যুগে যুগে এই ঈদ উদযাপনে এসেছে নানান পরিবর্তন।EID ER BAJNA BAJERE_2 ঈদ উৎসবে যোগ হয়েছে নতুন নতুন সংস্কৃতি, আবার কালের গর্ভে হারিয়ে গেছে অনেক ঐতিহ্য। ঈদ হচ্ছে সর্বশ্রেষ্ঠ আনন্দের নাম। তাই বিনোদনের চাহিদা থাকে অনেক বেশি। দর্শকদের ব্যাপক বিনোদনের কথা চিন্ত করে সাজানো হয়েছে ঈদের বাজনা বাজেরে। অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেছেন ব্যান্ড লিজেন্ড আইয়ুব বাচ্চু ও এলআরবি। আরও দুইটি বিশেষ গান এ অংশগ্রহণ করেছেন শফিক তুহিন, সিথি সাহা, কিশোর, রাফাত, পূজা, আয়েশা মৌসুমি, বৃষ্টি ও  সুজন আরিফ। কোরবানী ঈদ, ঈদ পরবর্তী বিভিন্ন বিষয় হাস্যরসাতœক বিভিন্ন স্কীট এর মাধ্যমে উপস্থাপন করা হয়েছে। এসব স্কীট এ অভিনয় করেছেন মাহবুবুর রহমান টনি, জাহিদ শিকদার, আশরাফ কবির, লিটন খন্দকার, হায়দার আলী, নূরুন্নবী রাসেল, তারিকুজ্জামান তপনসহ আরও অনেকে। অনুষ্ঠানটি গ্রন্থণা করেছেন সজল আমিন, প্রযোজনায় আসলাম শিকদার ও সমন্বয়কারী আরিফুল ইসমলাম।

 টেলিফিল্ম  ‘হেমন্তের অরণ্যে আমরা পোস্টম্যান’

এটিএন বাংলার  ঈদ-উল আযহা উপলক্ষে প্রচার হবে বিশেষ টেলিফিল্ম  ‘হেমন্তের অরণ্যে আমরা পোস্টম্যান’। টেলিফিল্মটি প্রচার হবে ঈদের নবম দিন রাত ১১.৩০ মিনিটে। টেলিফিল্মটির কাহিনী, চিত্রনাট্য ও পরিচালনা করেছেন অঞ্জন আইচ। অভিনয় করেছেন আবুল হায়াৎ, ইরফান সাজ্জাদ, শাহরিয়া নেহা, আরমান পারভেজ মুরাদ প্রমূখ।
HEMONTER ORONNE AMRA POSTMAN_2হঠাৎ করেই সকল স্মৃতি শক্তি হারিয়ে ফেলে হেমা। সে তার আগের জীবনের কোন কিছুই মনে করতে পারে না। তার বাবা সোবহান সাহেব তাকে বিভিন্ন ভাবে সব কিছু মনে করানোর চেষ্টা করতে থাকে। কিন্ত্র কোন ভাবেই কোন কিছু মনে করতে পারেনা হেমা। ঠিক সেই মূহুর্তে সেখানে এসে উপস্থিত হয় হেমার সাবেক প্রেমিক রায়হান। হেমা রায়হানকেও চিনতে পারে না। সবাই সমবেত হয়ে হেমার স্মৃতি শক্তি ফিরিয়ে আনার এবং তাকে স্বাভাবিক করতে আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যেতে থাকে। শুরু হয় এক নতুন যুদ্ধ।

নৃত্যানুষ্ঠান ‘পাঁচ রং’

এবার পাঁচ রং শিরোনামের নৃত্যানুষ্ঠানে নৃত্য পরিবেশন করবেন বাংলাদেশের নৃত্য জগতের জনপ্রিয় জুটি নাদিয়া ও লিখন। পোড়ামন-২ ছবির গান ‘ওহে শ্যাম তোমারে আমি নয়নে নয়নে রাখিব’ গানের সাথে নৃত্য পরিবেশ করবেন এই জুটি। শাহ আলম সরকারের কথা ও সুরে এবং ইমন সাহার সংগীতায়োজনে গানটিতে কন্ঠ দিয়েছেন ইমরান ও কণা। অনুষ্ঠানটি ঈদ উল আযহার বিশেষ অনুষ্ঠানমালায় ঈদের দশমদিন দুপুর ২.২০টায় প্রচার হবে এটিএন বাংলায়। এ অনুষ্ঠানে নাদিয়া-লিখন জুটি ছাড়াও নৃত্য পরিবেশন করবেন সোহেল-বারিশ, বিজু-নাবিলা, রাসেল-সুমি এবং তামান্না-সুব্রত জুটি। মূলত পাঁচটি জুটির পাঁচ ধরণের গান নিয়ে সাজানো হয়েছে ‘পাঁচ রং’ অনুষ্ঠানটি।
PANCH RONG_SOHEL-BARISH (1)একটা সময় ছিল যখন মানুষ অঙ্গভঙ্গির মাধ্যমে তার মনের ভাব প্রকাশ করতো। কালের বিবর্তনে যা নৃত্যে পরিনত হয়েছে। যে অনুভূতি মুখে প্রকাশ করা যায় না, তা নৃত্যের মাধ্যমে অন্যের কাছে পৌছে দেয়া যায়। আর মনের ভাব প্রকাশের এই মাধ্যমটি সাড়া বিশ্বেই শক্তিশালী শিল্পকলায় পরিণত। আর এই শিল্প মাধ্যমটিকে সমৃদ্ধ করার পাশাপাশি টিভি দর্শকদের ঈদ আনন্দকে বাড়িয়ে দিতে এটিএন বাংলার ঈদের বিশেষ অনুষ্ঠান ‘পাঁচ রং’। এলিনা শাম্মীর উপস্থাপনা এবং হাসান ইমামের নৃত্য পরিচালনায় অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেছেন আবদুস সাত্তার।