আলাউদ্দিন আলীর কালজয়ী সব গান

আলাউদ্দিন আলীর কালজয়ী সব গান

শেয়ার করুন

 

Alauddin Alli_2

দীর্ঘদিন অসুস্থ থাকার পর না ফেরার দেশে চলে গেলেন আটবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারজয়ী সুরকার আলাউদ্দিন আলী। রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৫টার পর মহাখালীর ইউনিভার্সেল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (সাবেক আয়েশা মেমোরিয়াল) মৃত্যুবরণ করেন তিনি।

তার মৃত্যুতে চলচ্চিত্র অঙ্গন ও সঙ্গীতজগতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। বাংলাদেশের সংস্কৃতিজগতের এক উজ্জ্বল নক্ষত্র হারিয়েছে বলে জানিয়েছেন দেশ বরেণ্য কণ্ঠশিল্পীরা।

বাংলা চলচ্চিত্রের গানে কিংবদন্তি আলাউদ্দিন আলী। বহু প্রতিভাধর এক অমর শিল্পী। তিনি একই সঙ্গে সুরকার, সংগীত পরিচালক, বেহালাবাদক ও গীতিকার। তার সুর ও কথায় কেবল বাংলাদেশই নয়, ভারত, পাকিস্তানের বহু নন্দিত শিল্পী কণ্ঠ দিয়েছেন।

তার লেখা আর সুরের গান বাংলার সঙ্গীতপ্রেমীদের মুখে মুখে। চলচ্চিত্র, বেতার, টেলিভিশন মিলে প্রায় হাজার পাঁচেক গান তৈরি করেছেন তিনি।

এক নজরে আলাউদ্দিন আলীর জনপ্রিয় ও কালজয়ী কিছু গান-

একবার যদি কেউ ভালোবাসতো, যে ছিল দৃষ্টির সীমানায়, ইস্টিশনের রেলগাড়িটা, দুঃখ ভালোবেসে প্রেমের খেলা খেলতে হয়, হয় যদি বদনাম হোক আরো, ও আমার বাংলা মা তোর, আছেন আমার মোক্তার আছেন আমার ব্যারিস্টার, সুখে থাকো ও আমার নন্দিনী হয়ে কারও ঘরনি,

কেউ কোনোদিন আমারে তো কথা দিল না, পারি না ভুলে যেতে, স্মৃতিরা মালা গেঁথে, জন্ম থেকে জ্বলছি মাগো, ভেঙেছে পিঞ্জর মেলেছে ডানা, আমার মনের ভেতর অনেক জ্বালা আগুন হইয়া জ্বলে,

সূর্যোদয়ে তুমি, সূর্যাস্তেও তুমি ও আমার বাংলাদেশ, বন্ধু তিন দিন তোর বাড়ি গেলাম দেখা পাইলাম না, যেটুকু সময় তুমি থাকো কাছে, মনে হয় এ দেহে প্রাণ আছে, এমনও তো প্রেম হয়, চোখের জলে কথা কয়, সবাই বলে বয়স বাড়ে আমি বলি কমে রে, আমায় গেঁথে দাওনা মাগো, একটা পলাশ ফুলের মালা,

আমার শেষ বাংলাদেশ, বাড়ির মানুষ কয় আমায় তাবিজ করেছে, আকাশের সব তারা ঝরে যাবে, এ জীবন তোমাকে দিলাম, কেন আশা বেঁধে রাখি, সাগরিকা বেঁচে আছে তোমারই ভালোবাসায়, দিন কি রাতে, আমার মতো এত সুখী নয় তো কারো জীবন।

এছাড়াও, শত জনমের স্বপ্ন তুমি আমার জীবনে এলে, তোমাকে চাই আমি আরও কাছে, এই দুনিয়া এখন তো আর সেই দুনিয়া নাই, হায়রে কপাল মন্দ চোখ থাকিতে অন্ধ, ভালোবাসা যতো বড়ো জীবন তত বড় নয় ইত্যাদি তার উল্লেখযোগ্য গান।