মোবাইল ব্যাংকিংয়ের নামে বিদেশ থেকে টাকা পাঠাচ্ছেন হুন্ডি ব্যবসায়ীরা

মোবাইল ব্যাংকিংয়ের নামে বিদেশ থেকে টাকা পাঠাচ্ছেন হুন্ডি ব্যবসায়ীরা

শেয়ার করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক :

মোবাইল ব্যাংকিং এর নামে বিদেশ থেকে টাকা পাঠাচ্ছেন হুন্ডি ব্যবসায়ীরা। তাই এসব প্রতারকদের বিরুদ্ধে এখন আইনগত ব্যবস্থ নিচ্ছে বিকাশ কর্তৃপক্ষ। মাঠে নেমেছে সরকারের গোয়েন্দা সংস্থাও।

বিদেশের মাটিতে বাংলাদেশীদের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে এখন ঝুলছে বিভিন্ন মোবাইল ব্যাংকিং সেবার সাইনবোর্ড। কাজটি যারা করছেন তারা মুলত হুন্ডি ব্যবসায়ী। দেখাচ্ছেন সহজ আর কম খরচ এর প্রলোভন। তাই বিভ্রান্ত হচ্ছেন, প্রবাসীরাও।

হুন্ডি ব্যবসায়ীরা কাজটি করছেন চারভাগে। প্রথমে মোবাইল ব্যাংকিং এর সাইনবোর্ড দেখে প্রবাসীরা যান হুন্ডি ব্যবসায়ীদের কাছে। দ্বিতীয় পর্যায়ে হুন্ডি ব্যবসায়ী বৈদেশিক মুদ্রা নিজের কাছে রেখে তার সমপরিমান টাকা দিতে ফোন করেন বাংলাদেশে থাকা তাদের এজেন্টদের। তথ্য পেয়েই এজেন্টরা বিকাশ কিংবা রকেটের মাধ্যমে তা পাঠিয়ে দিচ্ছেন স্বজনদের মোবাইল হিসাবে।

বিষয়টি নজরে আসে বাংলাদেশ ব্যাংকের ফাইন্যান্সিয়াল ইনটেলিজেন্টস ইউনিট বা বিএফআই ইউ এর। তারা সন্দেহভাজন এমন ২৮৮৭টি বিকাশ এজেন্ট এর তালিকা দিয়েছে বিকাশ কর্তৃপক্ষ আর সিআইডিকে। এরই মধ্যে সিআইডি আটক করেছে আটজনকে। বিকাশও জনগণকে এ ব্যাপারে সচেতন করছে।

এভাবে টাকা আসায় কমছে সরকারের রেমিটেন্স আয়। অন্যদিকে হুন্ডিওয়ালারা সহজ করে দিচ্ছে অর্থপাচারও।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সবশেষ হিসাবে গেলো বছর নভেম্বর পর্যন্ত রেমিটেন্স এসেছে ১২ হাজার ৮৬১ ডলার। যা আগের দু বছরের চেয়ে কম ১২শতাংশ।