দাম বাড়ছে খাদ্যের, দারিদ্রের দুষ্টচক্রে নিম্ন আয়ের মানুষ

দাম বাড়ছে খাদ্যের, দারিদ্রের দুষ্টচক্রে নিম্ন আয়ের মানুষ

শেয়ার করুন

gvdw5i3p20151009190514নিজস্ব প্রতিবেদক :

দাম বাড়ছে খাদ্যের। এর চাপ জীবনযাত্রায়। কম আয় আর মধ্যবিত্ত আটকা পড়ছেন দারিদ্রের দুষ্টচক্রে। বলছেন বিশ্লেষকরা।

নিম্ন থেকে মধ্যবিত্ত। গ্রাম থেকে শহর। সাধ্যের সীমা ছাড়াচ্ছে খাদ্যের খরচ। শুধু চালের দামই নয়, সবজির দামেও ভেঙ্গেছে আগের সব রেকর্ড। ৬০ টাকার নিচে মিলছে কোনো সবজিই। আর মাছ-মাংসের হিসাব তো বাদই। মাস হিসেবে কিংবা বছর সরকারের হিসাবেই তুলে ধরছে এমন উদ্বেগজনক পরিস্থিতি। আগে ১০০ টাকায় যা খাদ্য মিলতো, এখন তা কিনতে বাড়তি লাগছে ৬ দশমিক ১২ টাকা।  যেটা  মূল্যস্ফীতি। আর খাবারের এই বাড়তি খরচ, কমিয়ে দিচ্ছে আয়। কম খাচ্ছে কম আয়ের মানুষরা।

খরচ বাড়ার কারণে কম আয়ের মানুষকে খরচ করতে হচ্ছে তাদের  জমানো অর্থও। একপর্যায়ে গরীব হয়ে পড়ছে। আর দরিদ্র হয়ে পড়ে বলেই ঘোচেনা তার দারিদ্র্য। এ যেন অর্থনীতিবিদ নাকর্সের  সেই “দারিদ্রের দুষ্টচক্র” তত্ত্ব।

কেউ কেউ বলছেন, মানুষের আয়ও বাড়ছে। আশা করা হচ্ছে বছর শেষে মাথাপিছু জাতীয় আয় দাঁড়াবে ১৬০২ ডলার।  কিন্তু আলোর নিচে অন্ধকার হচ্ছে আয় বৈষম্য। সরকারের সবশেষ আয়-ব্যয় জরিপ বলছে, বেশি আয়ের ১০% মানুষের হাতে এখন দেশের মোট সম্পদের ৩৮% । দেশে এখন দারিদ্র ২৪.৩% মানুষ। আর অতিদরিদ্র  ১২.৯ শতাংশ। আর তাই খাদ্য মূল্যবৃদ্ধিতে সবচাইতে চাপে পড়বে তারাই।