গাজীপুরে তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার অভিযোগ

গাজীপুরে তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার অভিযোগ

শেয়ার করুন

গাজীপুর প্রতিনিধি :

গাজীপুরের শ্রীপুরে মাদ্রাসার তৃতীয় শ্রেণির এক ছাত্রী ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শ্রীপুর উপজেলার তেলিহাটি ইউনিয়নের সাইটালিয়া গ্রামের রিকশাচালকের ১২ বছরের মাদ্রাসা পড়ুয়া মেয়েকে একই গ্রামের আমান উল্লাহ মাদ্রাসায় যাওয়া-আসার সময় জোড়পূবক একাধিকবার ধর্ষণ করে বলে জানা যায়। ঘটনা প্রকাশ করলে তাকে মেরে ফেলার হুমকি দেয় ধর্ষক আমান এবং গত দুই মাস ধরে তার মাদ্রাসায় যাওয়া বন্ধ করে দেয়।

সম্প্রতি শারীরিক গঠনে পরিবর্তন আসলে ধর্ষিতা ছাএী তার মাকে ঘটনা খুলে বলে। পরে মেডিকেল পরীক্ষায় তার সাড়ে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বার প্রমাণ পাওয়া যায়। ধর্ষক আমান উল্লাহ এক সন্তানের জনক ও স্থানীয় একটি সোয়েটার কারখানার শ্রমিক।

এদিকে ঘটনা প্রকাশ হওয়ার পর গাজীপুর জেলা ও শ্রীপুর উপজেলা প্রশাসন ধর্ষিতার সকল প্রকার দায়িত্ব গ্রহন করেছে। গাজীপুরের পুলিশ সুপার মো: হারুন অর রশিদ জানান মামলা দায়েরের জন্য ধর্ষিতা বা তার পরিবারের কাউকে না পাওয়া গেলে অবশেষে পুলিশ বাদ হয়ে মামলা দায়ের করেছে। শ্রীপুর উপজেলা হাসপাতালের স্ত্রী ও প্রসূতি বিশেষজ্ঞ জহিরুননেসা জানান, গর্ভবতী এই শিশুটি মারাত্মক ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে, তাকে সার্বক্ষণিক চিকিৎসকের পর্যবেক্ষণে রাখা দরকার।