ভাল বক্তা উপস্থাপক ও বিতার্কিক হতে চাইলে

ভাল বক্তা উপস্থাপক ও বিতার্কিক হতে চাইলে

শেয়ার করুন
1a82f60f9a31477f19576b8183877d11.0
লেখক আল মামুন রাসেল।

সাইফুল ইসলাম রিয়াদ:

জন্মের দুয়েক বছর পর থেকেই মানুষ কথা বলতে পারে কিন্ত কয়জন মানুষ বক্তা হতে পারে? কয়েক মিনিটের একটি বক্তব্য দিয়ে লাখো মানুষের মন জয় করা যায়। আবার বক্তব্য ভালভাবে উপস্থাপন না করার কারণে খেসারতও দিতে হয় গুণে গুণে! ইংরেজিতে একটি কথা আছে ‘পাবলিক স্পিকিং ইজ দ্য আর্ট অফ ডায়ালগ এ টু মিনিট আইডিয়া উইথ এ টু আওয়ার ভোকাভুলারি’!

চর্চার মাধ্যমেই হওয়া যায় ভাল বক্তা, উপস্থাপক অথবা একজন ভাল বিতার্কিক। কিন্ত সঠিক দিকনির্দেশনার অভাবে হারিয়ে যায় উঠতি বয়সের অনেক শিক্ষার্থী। বঞ্চিত হয় একজন বক্তা হয়ে ওঠা থেকে। একজন বক্তার বক্তব্যের আবডালে থাকে তুখোড় পরিশ্রম, অনেক সাধনা। কিন্ত কিভাবে কী করবেন?

একজন বক্তা, বিতার্কিক অথবা উপস্থাপক হওয়ার স্বপ্নকে পূর্ণতায় রূপ দিতে এগিয়ে এসেছেন একজন সফল বক্তা এবং বিতার্কিক। চারদিকে যার খ্যাতি তুখোড় বক্তা হিসেবে। যার কথার দ্যুতিতে মোহিত হয়ে থাকে হাজারো শ্রোতা। আল-মামুন রাসেল।  আন্তর্জাতিক ভাবে পুরস্কৃত হয়েছেন বক্তৃতার জন্য! পুরস্কৃত হয়ে তিনি দমে যাননি, বক্তা হওয়ার স্বপ্ন সারথিদের জন্য নিয়ে এসেছেন বক্তা হওয়ার কলা কৌশল নিয়ে প্রায় দেড়শর অধিক পৃষ্ঠার একটি বই।

f72cde192c716ded8cfa41ee05b632c8.0
বইয়ের প্রচ্ছদ।

বইয়ের নাম দেওয়া হয়েছে ‘ভাল বক্তা উপস্থাপক এবং বিতার্কিক হওয়ার বৈজ্ঞানিক কৌশল’। বইটি ভাগ করা হয়েছে তিনটি ধাপে। শুরু হয় ভাল বক্তা হওয়ার বৈজ্ঞানিক কৌশল দিয়ে মাঝে আছে ভাল উপস্থাপক হওয়ার বৈজ্ঞানিক কৌশল আর শেষ হয় ভাল বিতার্কিক হওয়ার বৈজ্ঞানিক কৌশল দিয়ে। বইটি লিখা হয়েছে সম্পূর্ণ সায়েন্টিফিক মেথডে।

বইটি পড়েই রাতারাতি একজন বক্তা, একজন উপস্থাপক অথবা একজন বিতার্কিক হওয়া যাবেনা। করতে হবে নিয়মিত চর্চা আর মেনে চলতে হবে যথাযথ নিয়ম-কানুন। লেখকের ভাষায় একজন বক্তা হতে হলে সর্ব-প্রথম আপনাকে প্রচুর বক্তৃতা শুনতে হবে। এটা কঠিন কাজ তবুও বক্তা হওয়ার ইচ্ছা থাকলে কাজটিকে সহজ করে ফেলতে হবে। শুনার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে। এ অভ্যাসই আপনাকে পরিণত করতে পারে একজন ভাল বক্তায়।

লেখক ব্যক্তিগত জীবনে সফল বক্তা না শুধু একজন সফল বিতার্কিকও। বিতর্ক করে বেড়িয়েছেন সারাদেশে। বিভিন্ন শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানে বিতর্ক নিয়ে করেছেন নানা কর্মশালা। তাই বইটিতেই পুংখনাপুংখ ভাবে বর্ণনা করা হয়েছে বিতার্কিক হওয়ার কলা কৌশল। লেখকের নিজের অভিজ্ঞতা থেকে শুরু বর্ণনা করেছেন অনেক রথী-মহারথীর অভিজ্ঞতাও।

প্রকাশনী স্ংস্থার সূত্রে জানা যায় আল মামুন রাসেলের বইটি বেস্ট সেলার ২০ টি বইয়ের মধ্যে অবস্থান করছে। এ বইটি এবার একুশে বই মেলায় লেখা-লেখি প্রকাশনীর ব্যানারে প্রকাশিত হয়েছে। বইমেলার ৪০৬ নাম্বার স্টলে পাওয়া যাবে বইটি। বইটি সংগ্রহ করে আপনিও হয়ে উঠুন একজন সফল বক্তা একজন সফল উপস্থাপক অথবা একজন সফল বিতার্কিক।