দরজায় কড়া নাড়ছে অমর একুশে গ্রন্থমেলা

দরজায় কড়া নাড়ছে অমর একুশে গ্রন্থমেলা

শেয়ার করুন

বইমেলানিজস্ব প্রতিবেদক :

দরজায় কড়া নাড়ার দূরত্বে অমর একুশে গ্রন্থমেলা। মেলা প্রাঙ্গণে এখন তাই সাজসাজ রব। চলছে শেষ মুহুর্তের প্রস্তুতি। নিরাপত্তা ব্যবস্থার ছক আঁকাও শেষ। তবে এবারও ধর্মী অনুভূতিতে আঘাত হানতে পারে, এমন প্রকাশনা খুঁজে আইনি ব্যবস্থা নেয়ার হুশিয়ারি দিয়েছে পুলিশ।

আর মাত্র  কয়েকটা দিন রাতের পালাবদল। তারপরই শুরু বাঙালির প্রাণের উৎসব- অমর একুশে গ্রন্থমেলা। শেষ মুহুর্তের প্রস্তুতিতে এখন তাই এমনই ব্যস্ত বাংলা একাডেমি আর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের মেলা প্রাঙ্গণ।

অন্য  যে কোনবারের তুলনায় এবার বাড়ছে মেলা প্রাঙ্গণের আকার। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের ৫ লাখ বর্গফুট এলাকা নিয়ে থাকছে বই মেলার মূল আয়োজনটা। আর বিশাল এই আয়তনকে ভাগ করা হয়েছে ১৪টি চত্বরে। যার মধ্যে ১২টি চত্বর হবে প্রয়াত সাহিত্যিক ও বুদ্ধিজীবীদের নামে। আর সদ্য প্রয়াত কথাসাহিত্যিক শওকত আলীর নামে  হবে বাংলা একাডেমির চত্বরটি।

মেলা প্রাঙ্গণের সাথে বেড়েছে অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানের সংখ্যাও। ৪৫৫টি প্রতিষ্ঠান এবার তাদের স্টল সাজাবে, এরমধ্যে থাকছে ২৪টি প্যাভিলিয়ন।

মঙ্গলবার সকালে সংবাদ সম্মেলন করে বাংলা একাডেমি জানিয়েছে, ১ ফেব্রুয়ারি বিকাল তিনটায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই মেলার উদ্বোধন করবেন। সুষ্ঠুভাবে মেলা আয়োজনের সব ব্যবস্থাই নেয়া হয়েছে দাবি করে তারা বলছেন, মেলা শুরুর আগে স্টল বরাদ্দ নিয়ে তাদের নানা ঝামেলা পোহাতে হয়েছে।

বই মেলার নিরাপত্তায় এবার থাকছে আড়াইশ ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা। মেলার নিরাপত্তা ব্যবস্থা দেখতে এসে মঙ্গলবার ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার বললেন, মেলা প্রাঙ্গণ জুড়ে এবার কয়েক স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকছে।
ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত লাগতে পারে এমন কোন প্রকাশনা আনলে, এবারও তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানানো হয় পুলিশের পক্ষ থেকে।